Pages

Sunday, January 1, 2012

তুলা রাশি



তুলা রাশির আদ্যক্ষর : রা, রী, রু , রে , রো , তা , তী , তু , তে ।
২০১২ সাল কেমন যাবে?
কখন আপনার অর্থ আসবে?

১। লগ্নের পঞ্চমে শুক্র বক্রী না হয়ে অবস্থান করলে এবং একাদশে শনি থাকলে, অর্থচিন্তা আপনার থাকবে না। ২। এখন আপনার কি দশা আছে দেখুন। দ্বিতীয়, চতুর্থ, পঞ্চম, নবম ও একাদশপতির দশাতে অর্থ হাতে আসে। তবে কথা হলো উপরোক্ত যে কোন পতির দশাই চলুক, রাশিচক্রে সেই গ্রহটি শুভ থাকার দরকার। তাছাড়া দশাধিপতি থেকে অন্তর্দশাপতি দ্বাদশে যদি থাকে, তাহলে অশুভ। ৩। ব্যবসাদারদের অষ্টমপতির দশায় বা অন্তর্দশায় আর্থিক অবস্থা শুভ ফল দেবে। ৪। সপ্তমপতির মহাদশা কালে যদি সপ্তম, অষ্টম, দশম, একাদশ, পঞ্চম বা তৃতীয়পতির অন্তর্দশা হয়, তাহলে ব্যবসায় খুব লাভ হবে। ৫। ষষ্ঠপতির দশায় শ্রমিকগণ বেশী উপার্জনে সক্ষম হতে পারেন। ৬। দ্বিতীয়, চতুর্থ, পঞ্চম, অষ্টম, নবম ও একাদশপতি গোচরে ভ্রমন সময়ে নিজেদের স্বক্ষেত্রে বা একে অপরের ক্ষেত্রে অথবা কোনও কোনও ক্ষেত্রে (ষষ্ঠ, অষ্টম ও দ্বাদশ ছাড়া) অপরের সঙ্গে মিলিত হলে, প্রচুর অর্থ হাতে আসবে। ৭। বৃহস্পতি ও শনির অবস্থানের জন্য যখন সিংহাসন যোগ হবে, তখন প্রচুর অর্থ হাতে আসতে পারে। ৮। দ্বিতীয়পতি যদি দশমে গোচরে চলে আসে ও সেই সময় যদি বৃহস্পতি বা শনি দশম স্থানে থাকে, প্রচুর অর্থ হাতে আসবে। ৯। দশমপতি যে সময়ে ধনস্থানে আসে, বৃহ্সপতি সেইসময় ধনস্থানে থাকলে প্রচুর অর্থ উপার্জন হবে। তবে ধনুলগ্নের পক্ষে এইরকম আয়-উপার্জন সম্ভব হবে না।
২০১২ তুলা রাশির বার্ষিক ভবিষ্যৎ ফল
স্বাস্থ্য: বর্ত্তমান বছরে আপনার শারীরিক অবস্থা ভালোই থাকবে। ঋতু পরিবর্তনজনিত কোন কারণে সামান্য অসুস্থ্য হতে পারেন। শ্লেষ্মার জন্যে গলায় কোন কষ্ট হতে পারে। যেকোন মাদকদ্রব্য আপনার শরীরের ক্ষতি করতে পারে। আহারে সংযম ও সমানুযায়ী খাওয়া-দাওয়া করলে অনেক রোগ থেকে মুক্তি পাবেন।

পারিবারিক ক্ষেত্র: আপনি সবার সঙ্গে মিলেমিশে থাকতে ভালোবাসেন। কিন্তু অভিমানী। আপনি ভাই-বোনদের স্নেহ করলেও সবসময় তাদের কাছ থেকে মনোমত ব্যবহার পাবেন না। পিতা-মাতার প্রতি আপনার দায়িত্ব ও কর্তব্যবোধ থাকলেও আপনার প্রতি তাদের খুব একটা সুবিচার থাকবে না। আত্মীয়রা আপনার কাছে সুযোগ নেবে কিন্তু কৃতজ্ঞতাবোধ থাকবে না। আপনার দাম্পত্য জীবন সুখের হলেও স্ত্রীর সঙ্গে মতবিরোধ প্রায়শ:ই হবে। আন্তরিক সহযোগিতা উভয়ের মধ্যে থাকলে এবঙ অভিমান ত্যাগ করলে সংসারে শান্তি বজায় থাকবে। সন্তারা আপনাকে খুব ভালবাসে কিন্তু তাদের অন্যায় আবদার আপনার পছন্দ হবে না। নিজেকে সংযত রাখলে নিজেই সুখী হবেন।

শিক্ষা: বর্ত্তমান বছরে আপনার উচ্চ-শিক্ষার যোগ আছে। তাছাড়া বিভিন্ন শাস্ত্রের প্রতি আপনার আগ্রহ বৃদ্ধি পাবে। দর্শন, মনোস্তত্ব ও বিজ্ঞান সাফল্য লাভ করবেন। সন্তানদের বিদ্যায় অমনোযোগিতারভাব দেখা দিতে পারে সে বিষয়ে সজাগ থাকবেন। সঠিকভাবে পরিচালনা করতে পারলে তাদের জন্য গর্বিতও হতে পারেন।

ব্যবসা: চবর্ত্তমান বছরে অর্থোপার্জনের বেশ কিছু সুযোগ পাবেন। ব্যবসায় প্রতিযোগিতা থাকলেও প্রতিষ্ঠিত হবেন। চাকরীক্ষেত্রে পদোন্নতির ফলে আয় বৃদ্ধি পাবে। কম্পিউটার যন্ত্রাংশ, ছাপাখানা, ইলেক্ট্রনিক্স যন্ত্রপাতি ব্যবসায় প্রভূত লাভ হতে পারে। তবে এ বছর আয় বেশী হলেও মূল্যবৃদ্ধি ও অমিতব্যয়ী হওয়ার ফলে সঞ্চয় হবে না। বেসরকারী চাকরীতে অসন্তোষ দেখা দিতে পারে। অধ্যাপনা, ওকালতি ও চিকিৎসাতে সাফল্য পাবেন। আর্থিক অসুবিধার সম্মুখীন হলেও খুব একটা সমস্যায় পড়বেন না।

ভ্রমণ: আপনি ভ্রমনপিপাসী। প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্য আপনাকে বরাবরই আকর্ষণ করে। বর্ত্তমান বছরে কাছে বা দূরে ভ্রমণ হতে পারে। ভ্রমণে সতর্কতা অবলম্বন করবেন।
তুলা রাশির ২০১২ সালের দৈনন্দিন ফলাফল
জানুয়ারী – ২০১২ (৩১ দিন)

১-২-৩: কোন বিশিষ্ট ব্যক্তির সাহায্য পাবেন। কাজকর্মের চাপ বৃদ্ধি পাবে। মানসিক চঞ্চলতায় কাজের কিছু ক্ষতি হবে। কোন নারীর দ্বারা আনন্দ লাভ।

৪-৫-৬: চাকরীক্ষেত্রে সহকর্মীদের সহযোগিতা পাবেন। কোন বন্ধুর দ্বারা সমস্যা দেখা দিতে পারে। কাজকর্মে উদাসীনতা বা অবসাদ আসতে পারে।

৭-৮-৯: কোন শুভ সংবাদ পেতে পারেন। পারিবারিক কিছু সমস্যার সমাধান হবে। ছাত্র-ছাত্রীরা সাফল্য পাবেন। স্বাস্থ্য ভালোই থাকবে।

১০-১১-১২: কোন আত্মীয় সমস্যায় ব্যস্ত হতে পারেন। কোন কারণে ভ্রাতৃবিরোধ দেখা দিতে পারে। কাজকর্মে আংশিক সাফল্যলাভ হবে।

১৩-১৪-১৫: কিছু কাজ অসমাপ্ত থেকে যাবে। সরকারী চাকরীতে দায়িত্ব বৃদ্ধি পাবে। অযথা বদনাম পেতে পারেন। রাজনীতির ক্ষেত্রে শত্রু বৃদ্ধি পাবে।

১৬-১৭-১৮: সরকারী কাজে সাফল্য ও সুনাম পাবেন। ব্যবসাক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠিত হওয়ার সুযোগ পাবেন। ধর্মীয় কাজে আগ্রহ বৃদ্ধি পাবে।

১৯-২০-২১: কাজকর্মের চাপ বৃদ্ধি পাবার ফলে আর্থিক চিন্তাও বাড়বে। কোন বিপরীত লিঙ্গের সহযোগিতা পাবেন। ব্যবসায়ীদের কিছু অর্থ অনাদায়ী থেকে যাবে।

২২-২৩-২৪: অনেক কাজ অসম্পূর্ণ থেকে যেতে পারে। আর্থিক অবস্থার কিছুটা উন্নতি হলেও সন্তানদের শিক্ষার জন্য চিন্তা থেকে যাবে। স্বাস্থ্যভাব মধ্যম।

২৫-২৬-২৭: মনের গোপন কথা কারোর কাছে প্রকাশ করবেন না। সময়টা আপনার অনুকূল নয়। শত্রুপক্ষ প্রবল হয়ে উঠতে পারে।

২৮-২৯: ধীর-স্থির ভাবে কাজ করবেন। হঠাৎ কোন সংবাদে বিচলিত হতে পারেন। ছাত্র-ছাত্রীদের কিছু সমস্যা আসতে পারে। পিতার স্বাস্থ্য ভালো যাবে না।

৩০-৩১: সরকারী কর্মীদের কোন খবরে চিন্তা বৃদ্ধি পাবে। মাথা ঠান্ডা রেখে কাজ করবেন। অধ্যাপকদের সুনাম ও অর্থলাভ হবে। ভ্রমণে আনন্দ লাভ।
ফেব্রুয়ারী – ২০১২ (২৯ দিন)

১-২-৩: ছাত্র-ছাত্রীদের সাময়িক বাধা-বিঘ্ন আসতে পারে। সরকারী চাকরীতে পদোন্নতির যোগ আছে। ব্যবসায়ে মন্দাভাব দেখা দিতে পারে। শির:পীড়ায় কষ্ট পাবেন।

৪-৫-৬: বাড়ীতে আত্মীয় সমাগমে ব্যস্ত থাকতে হতে পারে। চাকরীক্ষেত্র শুভ বলা যায়। স্ত্রীর স্বাস্থ্য ভালো যাবে না। শারীরিক কিছু পরীক্ষার জন্য অর্থ ব্যয়।

৭-৮-৯: কাজকর্মের চাপ বৃদ্ধি পাবে। কোন বন্ধুর দ্বারা ব্যবসায় প্রসার ঘটবে। ধর্মীয় কাজে ব্যস্ত হতে পারেন। আর্থিক চিন্তা কিছুটা হ্রাস পাবে।

১০-১১-১২: হঠাৎ কোন সংবাদে বিচলিত হতে পারেন। কিছু কাজ অসম্পূর্ণ থেকে যেতে পারে। মানসিক অবসাদ দেখা দিতে পারে।

১৩-১৪-১৫: অসম্পূর্ণ কাজ শেষ করতে পরিশ্রম বৃদ্ধি পাবে। পারিবারিক সমস্যা থাকলেও সমাধান করতে পারবেন। আর্থিক অবস্থার উন্নতি ঘটবে।

১৬-১৭-১৮: সময়টা আপনার অনুকূল বলা যায়। দৈনন্দিন কাজকর্ম ভালোভাবেই চলবে। পাওনা অর্থ কিছু হাতে আসবে।

১৯-২০-২১: অনেক গুরুত্বপূর্ণ কাজ শেষ করতে পারবেন। চাকরীক্ষেত্রে মতবিরোধ দেখা দিতে পারে। নতুন কাজ হাতে আসায় আর্থিক চিন্তা হবে।

২২-২৩-২৪: বুদ্ধি ও পরিশ্রমের ফলে ব্যবসায়ে সাফল্য পাবেন। সরকারী চাকরীতে বদলীর সম্ভাবনা আছে। সামাজিক কাজে সুনাম পাবেন।

২৫-২৬-২৭: ব্যয়াধিক্যবশতঃ মানসিক উদ্বেগ বৃদ্ধি পাবে। অযথা কিছু অর্থব্যয় হতে পারে। সাংসারিক অশান্তিতে মন বিক্ষিপ্ত হবে। কোন বন্ধু দ্বারা আনন্দ লাভ।

২৮-২৯: আমদানী-রপ্তানী কাজে আশানুরূপ লাভ হবে না। শিক্ষার্থীদের সমস্যা কমবে। বকেয়া টাকা হাতে আসার ফলে আর্থিক চিন্তা কমবে।
মার্চ – ২০১২ (৩১ দিন)

১-২-৩: রাজনীতিরক্ষেত্রে সুনাম ও সমর্থন বাড়বে। কোন পরীক্ষা বা ইন্টারভিউতে সাফল্য লাভ করবেন। স্ত্রীর স্বাস্থ্যের উন্নতি ঘটবে।

৪-৫-৬: নিজের হঠকারিতার ফলে নিজেই সমস্যার সৃষ্টি করবেন। কাজকর্মের কিছু ক্ষতি হতে পারে। পিতা-মাতার সহানুভূতি লাভ করবেন।

৭-৮-৯: ব্যবসার পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলেও অংশীদারী ব্যবসায় সমস্যা আসতে পারে। দৈনন্দিন কাজকর্ম মোটামোটি চলবে। প্রেমে সফলতা লাভ করবেন।

১০-১১-১২: অর্থ কিছু হাতে এলেও ব্যয় বেশী হবে। জুয়া প্রভৃতিতে অর্থনাশ হতে পারে। কারো সঙ্গে লেন-দেনের ব্যাপারে যাবেন না।

১৩-১৪-১৫: খেলনা ও সৌখিনদ্রব্য ব্যবসায় লাভবান হবেন। বস্ত্র ব্যবসায়ীদের দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির ফলে লভ্যাংশ কমবে। বন্ধুদের সহায়তা পাবেন।

১৬-১৭-১৮: কোন গোপন তথ্য ফাস হয়ে ক্ষতি হবে। কেউ আপনার বিশ্বাস ভঙ্গ করতে পারে। কোন বিশিষ্ট ব্যক্তির সহায়তা পাবেন।

১৯-২০-২১: প্রচেষ্টা ও পরিশ্রমের দ্বারা সফলতা লাভ করবেন। গৃহে কোন নতুন জিনিস আসতে পারে। অভিমানবশতঃ দাম্পত্য কলহ।

২২-২৩-২৪: কাজকর্মে উৎসাহ বৃদ্ধি পাবে। কোন আত্মীয় বা বন্ধুর দ্বারা নতুন কোন যোগাযোগ হবে। পরিবারের কারোর স্বাস্থ্যের জন্য অর্থব্যয়।

২৫-২৬-২৭: কোন কারণে ভ্রাতৃবিরোধ দেখা দিতে পারে। মানসিক অশান্তির জন্য কাজকর্মে ক্ষতি হবে। নতুন কাজ হাতে থাকলেও অসমাপ্ত থাকবে।

২৮-২৯: পারিবারিক সমস্যা মেটাতে পারবেন। পরিশ্রমের দ্বারা অসমাপ্ত কাজ শেষ করবেন। যানবাহন সাবধানে চালাবেন, দুর্ঘটনার যোগ আছে।

৩০-৩১: সময়টা আপনার অনুকূল বলা যায়। কাজকর্মে সাফল্য লাভের ফলে নতুন কাজের সুযোগ আসবে। হাতে কিছু অর্থ আসায় চিন্তা কিছুটা কমবে।
এপ্রিল – ২০১২ (৩০ দিন)

১-২-৩: শুক্রের প্রভাবে সৌন্দর্য্যের প্রতি আপনার আকর্ষণ থাকবে। প্রসাধন ও সৌখিনদ্রব্য ব্যবসায়ে লাভবান হবেন। কোন বিপরীত লিঙ্গের দ্বারা সহায়তা পাবেন।

৪-৫-৬: উৎসাহের ফলে কাজকর্মে চাপ বৃদ্ধি পাবে। ব্যয়বাহুল্যের ফলে চিন্তা বাড়বে। ব্যবসায় পরিশ্রম বৃদ্ধি পাবে। স্বাস্থ্য খুব একটা ভালো যাবে না।

৭-৮-৯: দৈনন্দিন কাজকর্মে চাপ বৃদ্ধি পাবে। ব্যয়বাহুল্যের ফলে চিন্তা বাড়বে। ব্যবসায় পরিশ্রম বৃদ্ধি পাবে। স্বাস্থ্য খুব একটা ভালো যাবে না।

১০-১১-১২: সময়টা আপনার খারাপ বলা যায় না। কোন বিশিষ্ট ব্যক্তির দ্বারা ব্যবসায়ে নতুন যোগাযোগ হবে। কোন বন্ধুর আগ্রহে ধর্মীয় সংগঠনে যুক্ত হবেন।

১৩-১৪-১৫: প্রকাশনা ও কাগজ ব্যবসায়ে লাভবান হবেন। চাকরীক্ষেত্রে অসন্তোষ দেখা দিতে পারে। জল বা আগুন থেকে দূরে থাকবেন। ভ্রমণযোগ থাকলেও যাবেন না।

১৬-১৭-১৮: আপনার রাজনৈতিক প্রভাবে ঈর্ষান্বিত হয়ে কেউ আপনার ক্ষতির চেষ্টা করতে পারে। ইলেক্ট্রনিক্স যন্ত্রপাতি ব্যবসায় লাভবান হবেন। স্বাস্থ্যভাব শুভ।

১৯-২০-২১: সামাজিক কাজে ব্যস্ত হতে পারেন। দৈনন্দিন কাজকর্মে কিছু শুভফল পাবেন। ঠিকমত অর্থ আদায় না হবার ফলে চিন্তায় থাকবেন।

২২-২৩-২৪: মাতার সাহায্যে পারিবারিক সমস্যা মিটবে। চাকরীক্ষেত্রে সুনাম পাবেন। আমদানী-রপ্তানী ব্যবসায় সামান্য লাভ।

২৫-২৬-২৭: বেশী উদারতা আপনার পক্ষে ক্ষতিকারক। কেউ বিশ্বাসঘাতকতা করতে পারে। পাওনা অর্থ পেতে বিলম্ব হবে। ধর্মীয় ব্যাপারে আগ্রহ বাড়বে।

২৮-২৯-৩০: বুদ্ধি ও পরিশ্রমের দ্বারা অনেক কাজে সাফল্য পাবেন। চাকরীক্ষেত্রে মতবিরোধ দেখা দিতে পারে। পিতা বা মাতার স্বাস্থ্যের জন্য অর্থব্যয়।
মে – ২০১২ (৩১ দিন)

১-২-৩: ব্যয়বাহুল্যের ফলে দাম্পত্য কলহ বৃদ্ধি পাবে। চাকরীক্ষেত্রে সমস্যার সমাধান করতে পারবেন। ব্যবসায়ে সাময়িক মন্দাভাব দেখা দেবে।

৪-৫-৬: কোন ভুলের জন্য আফশোস হতে পারে। ভ্রাতা বা বন্ধুর সঙ্গে ভুল বোঝাবুঝির ফলে মানসিক অস্বস্তিতে ভুগবেন। ঠিকাদারী ব্যবসায় অর্থ কিছু হাতে আসবে।

৭-৮-৯: ব্যবসার প্রসার ঘটাতে কিছু ঋন হতে পারে। পিতার সহযোগিতা পাবেন। সামাজিক কাজে সম্মান লাভ। শিক্ষার দিক থেকে কিছু চিন্তা থেকে যাবে।

১০-১১-১২: বাড়ীতে কোন শুভানুষ্ঠানের জন্য ব্যস্ত থাকবেন। নতুন কাজের যোগাযোগ আসতে পারে এবং তাতে লাভবান হবেন। বস্ত্র ব্যবসায়ীদের শুভ বলা যায়।

১৩-১৪-১৫: বেকারদের কাজের সুযোগ আসতে পারে। চাকরীক্ষেত্রে পদোন্নতির সম্ভাবনা। অবিবাহিত কন্যা বা ভগ্নির বিবাহের জন্য চিন্তা হবে।

১৬-১৭-১৮: হঠাৎ মনে নিরাশা আসতে পারে। সন্তানদের জন্য চিন্তা হবে। মাতার সহানুভুতি লাভ করবেন। স্বাস্থ্য ভালোই থাকবে।

১৯-২০-২১: ব্যবসায়ের ঋণ কিছুটা পরিশোধ করতে পারবেন। আর্থিক চিন্তা থাকলেও অসুবিধে হবে না। বিজ্ঞানের ছাত্র-ছাত্রীদের শুভ।

২২-২৩-২৪: ঠিকানা ব্যবসায় নতুন যোগাযোগ আসতে পারে। পারিবারিক ক্ষেত্রে শান্তি বজায় থাকবে। প্রেমেরক্ষেত্রে প্রতারনা বা বদনাম হবে।

২৫-২৬-২৭: কাজকর্মের চাপে পরিশ্রম বেশী হবে। কিছু পাওনা অর্থ আদায় হবে। কাজকর্মে উৎসাহ বৃদ্ধি পাবে। কোন বন্ধুর সাহচর্য্যে আনন্দ লাভ।

২৮-২৯: ব্যবসায় বিশিষ্ট লোকের সাহায্য পাবেন। নতুন কোন লাভজনক কাজের সুযোগ আসতে পারে। আয়-উপার্জন ভালো হলেও সঞ্চয় হবে না।

৩০-৩১: সময়টা শুভ বলা যায়। পারিবারিক কিছু সমস্যা এলেও সমাধান করতে পারবেন। চাকরীক্ষেত্রে অবসাদ আসতে পারে। ভ্রমণে আনন্দ পাবেন।
জুন – ২০১২ (৩০ দিন)

১-২-৩: অনেক বাধা-বিঘ্ন কাটিয়ে উঠতে পারবেন। কাজকর্মে উৎসাহ বৃদ্ধি পাবে। অনেক কাজে সাফল্য লাভ করবেন। আর্থিক চিন্তা হ্রাস পাবে।

৪-৫-৬: কাজকর্মে সাফল্য পেলেও অর্থ পেতে বিলম্ব হবে। চাকরীক্ষেত্রে বদলীর সম্ভাবনা আছে। গৃহাদি সংস্কারে অর্থব্যয়। শারীরিক অবস্থা ভালোই থাকবে।

৭-৮-৯: পারিবারিক অশান্তিতে মানসিক বিরক্তি আসতে পারে। কিছু কাজ অসম্পূর্ণ থেকে যাবে। চাকরীক্ষেত্রেও মতবিরোধ দেখা দিতে পারে। নিজেকে সংযত রাখবেন।

১০-১১-১২: কারোর প্ররোচনায় কিছু অর্থব্যয় হবে। অবিবাহিতদের বিবাহের কথাবার্তা হতে পারে। ব্যবসায় প্রতিযোগিতা বাড়বে। পারিবারিকক্ষেত্র শুভ নয়।

১৩-১৪-১৫: পিতার সহযোগিতায় সম্পত্তির কিছু সমাধান হবে। ব্যবসায়ীদের সামান্য কিছু লাভ হবে। শিক্ষার্থীদের কিছু বাধা-বিঘ্ন আসতে পারে।

১৬-১৭-১৮: হঠাৎ কোন অপ্রিয় ঘটনায় বা কলহ-বিবাদে মানসিক উদ্বিগ্নতা দেখা দেবে। কেউ আপনার ক্ষতি করার চেষ্টা করতে পারে। ঠান্ডা মাথায় কাজ করবেন।

১৯-২০-২১: ব্যবসায় মন্দাভাব ও প্রতিযোগিতা দেখা দেবে। মানসিক চিন্তা দূর করে দৃঢ় পদক্ষেপে অগ্রসর হউন। বুদ্ধি ও পরিশ্রমে সাফল্য পাবেন।

২২-২৩-২৪: কোন বিশিষ্ট ব্যক্তির সহযোগিতা পাবেন। কাজকর্ম অনেকটা শুভ বলা যায়। কিছু অর্থ হাতে এলেও মানসিক চিন্তা বজায় থাকবে।

২৫-২৬-২৭: কাজকর্মে সাফল্য আনতে অনেক পরিশ্রম করতে হবে। কিছু কাজ অসম্পূর্ণ থেকে যেতে পারে। কোন বন্ধুর সহযোগিতা পাবেন।

২৮-২৯-৩০: কিছু সমস্যা আসবে এবং সমাধানও হবে। পিতার স্বাস্থ্য ভালো যাবে না। শুক্র অশুভ হলে রাশিগত ফলও অশুভ হবে। সাবধানে থাকবেন।
জুলাই – ২০১২ (৩১ দিন)

১-২-৩: সময়টা আপনার কিছু শুভ বলা যায়। কোন ব্যক্তির সহযোগিতায় ব্যবসায়ে উন্নতি হবে। কর্ম্মোপলক্ষ্যে বাইরে যেতে হতে পারে। পারিবারিকক্ষেত্র অনেকটা শুভ।

৪-৫-৬: সংসারে কিছু পরিবর্তন আসতে পারে। কোন বন্ধুর সাহায্য লাভ করবেন। চাকরীক্ষেত্রে সুনাম পাবেন এবং সহকর্মীদের সহযোগিতা লাভ হবে। স্বাস্থ্য শুভ নয়।

৭-৮-৯: আপনার মানসিক দৃঢ়তায় কাজকর্মে সফল হবেন। রাজনৈতিকক্ষেত্রে অশান্তির সৃষ্টি হতে পারে। ব্যবসায় সাফল্য লাভ করবেন। দুর্ঘটনার যোগ আছে।

১০-১১-১২: সামাজিক কাজে সুনাম পাবেন ও বিশিষ্ট ব্যক্তির সঙ্গে পরিচয় হবে। কোন ভ্রাতার চাকরীপ্রাপ্তিতে আনন্দ পাবেন। পারিবারিক শান্তি বজায় থাকবে।

১৩-১৪-১৫: ব্যয়াধিক্যবশতঃ চিন্তা বৃদ্ধি পাবে। তবে প্রয়োজন মেটাতে পারবেন। ব্যবসার দিক থেকে প্রতিযোগিতা বাড়বে। দাম্পত্য কলহে শান্তি বিঘ্নিত হতে পারে।

১৬-১৭-১৮: মানসিক চঞ্চলতার ফলে কাজকর্মে কিছু ক্ষতি হতে পারে। মাথা ঠান্ডা রেখে কাজকর্ম করবেন। পরিশ্রমের দ্বারা সাফল্য লাভ করবেন।

১৯-২০-২১: শিক্ষাক্ষেত্রে সাময়িক বাধা বিঘ্ন আসতে পারে। রাজনৈতিক সমস্যার সমাধান করতে পারবেন। কোন আত্মীয় সমস্যায় ব্যস্ত হবেন।

২২-২৩-২৪: বিবাহের কথাবার্তা শুরু হতে পারে। কোন শুভ সংবাদে মানসিক শান্তি পাবেন। কাজকর্মে উৎসাহ বৃদ্ধির ফলে সাফল্য পাবেন।

২৫-২৬-২৭: সাহিত্যিক ও সাংবাদিকদের শুভ সময়। সামাজিক কাজে সুনাম ও সাফল্য পাবেন। মজুতদারী ব্যবসায় লাভবান হতে পারেন।

২৮-২৯: পিতৃ বা মাতৃ স্থানীয় কারোর স্বাস্থ্যের জন্য চিন্তা ও অর্থব্যয়। কিছু অসমাপ্ত কাজ শেষ করতে পারবেন। ধর্মীয় ব্যাপারে আগ্রহ বৃদ্ধি পাবে।

৩০-৩১: নতুন কাজের সুযোগ এলেও কাজে মন বসবে না। মাথা ঠান্ডা রেখে কাজকর্ম করলে অবশ্যই সাফল্য পাবেন। কর্মচারীদের সহযোগিতা পাবেন।
আগস্ট – ২০১২ (৩১ দিন)

১-২-৩: ব্যবসায় উন্নতির যোগ আছে তবে প্রতিযোগিতাও থাকবে। নিজের গোপন কথা কারোর কাছে প্রকাশ করবেন না। প্রকাশক ও কাগজ ব্যবসায়ীদের শুভ।

৪-৫-৬: নিজের জেদের জন্য সংসারে অশান্তি দেখা দিতে পারে। যন্ত্রপাতি ব্যবসায় লাভবান হতে পারেন। সরকারী চাকরীতে দায়িত্ব বৃদ্ধি পাবে।

৭-৮-৯: অসম্পূর্ণ কাজ শেষ করলেও অর্থ পেতে বিলম্ব হবে। কোন শুভ সংবাদে উৎফুল্ল হবেন। চাকরীক্ষেত্রে আয় বৃদ্ধি পাবে। হোটেল বা খাদ্যব্যবসায় লাভ।

১০-১১-১২: কাউকে ঋণ দিলে ফেরৎ পেতে দেরী হবে। চাকরীক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ কাজের দায়িত্ব পাবেন। মানসিক ও শারীরিক চাপ বাড়বে। স্বাস্থ্যের যত্ন নেবেন।

১৩-১৪-১৫: ঠিকমত কাজ শেষ করতে না পারার ফলে চিন্তা বাড়বে। মানসিক দৃঢ়তা আনলে অবশ্যই সফল হবেন। নারীঘটিত ব্যাপারে বদনাম হতে পারে।

১৬-১৭-১৮: চাকরীক্ষেত্রে পদোন্নতির সাথে বদলীর সম্ভাবনা। দৈনন্দিন কাজে পরিশ্রম বৃদ্ধি পাবে। স্ত্রীর সহযোগিতা ও সান্নিধ্যে আনন্দ পাবেন।

১৯-২০-২১: দৈনন্দিন কাজে সাফল্য এলেও আশানুরূপ অর্থ হাতে আসবে না। সরকারী চাকরীতেও পরিশ্রম বাড়বে। নতুন কোন কাজ হাতে নেবেন না।

২২-২৩-২৪: ব্যয়াধিক্যের ফলে আর্থিক চিন্তা বৃদ্ধি পাবে। দেহে হঠাৎ আঘাত প্রাপ্তির সম্ভাবনা আছে। ব্যবসায়ে হঠাৎ মন্দাভাব দেখা দিতে পারে।

২৫-২৬-২৭: কোন সম্পত্তি বিষয়ে ভাই-বোনদের সহযোগিতায় সমস্যার সমাধান হবে। অনাদায়ী অর্থ কিছু হাতে এলেও সঞ্চয় হবে না। স্ত্রীর স্বাস্থ্য শুভ নয়।

২৮-২৯: কোন নিকট আত্মীয় বিয়োগ মন শোকাচ্ছন্ন থাকবে। মানসিক অবসাদে কাজকর্মের ক্ষতি হতে পারে। প্রসাধনী ও সৌখিনদ্রব্য ব্যবসায় লাভ হবে।

৩০-৩১: বেসরকারী কাজে পরিশ্রম বৃদ্ধি পাবে। কোন সহকর্মীর সঙ্গে কলহ-বিবাদে জড়িয়ে পড়তে পারেন। কোন ব্যাপারে আপনার বদনাম হতে পারে।
সেপ্টেম্বর – ২০১২ (৩০ দিন)

১-২-৩: কাজকর্মে পরিশ্রম বেশী হলেও আশানুরূপ অর্থ হাতে আসবে না। হঠাৎ কোন ব্যাপারে উত্তেজিত হয়ে উঠতে পারেন। কলহ-বিবাদ এড়িয়ে চলবেন।

৪-৫-৬: সামনে অনেক সুযোগ আসবে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে পারলে লাভবান হবেন। পরিবারের কারোর জন্য অর্থ ব্যয় হবে। প্রেমের ক্ষেত্রে আনন্দ লাভ।

৭-৮-৯: দৈনন্দিন কাজে সাফল্য পাবেন। আর্থিক অবস্থার পরিবর্তন হবে। গৃহে আত্মীয় সমাগমে ব্যস্ত থাকবেন। ব্যয় বেশী হলেও অসুবিধেয় পড়বেন না।

১০-১১-১২: ব্যবসায়ে প্রতিযোগিতা থাকলেও প্রতিষ্ঠিত হবেন। উদাসীনতা ত্যাগ ও পরিশ্রম আপনাকে সাফল্য এনে দেবে। সামাজিক কাজে প্রশংসা পাবেন।

১৩-১৪-১৫: কোন শ্রমিক আন্দোলনে নেতৃত্ব দিতে পারেন। গোপনে কেউ আপনার শত্রুতা করবে। সবার সঙ্গে স্বদ্ভাব রাখার চেষ্টা করবেন।

১৬-১৭-১৮: কোন বিশিষ্ট ব্যক্তির সহায়তায় কোন সমস্যার সমাধান করতে পারবেন। বেসরকারী কাজে সহকর্মীদের সহযোগিতা পাবেন। স্বাস্থ্য ভালোই থাকবে।

১৯-২০-২১: নতুন কাজকর্ম পেলেও মন বসবে না। আপনার স্বার্থপরতার জন্য সংসারে অশান্তি দেখা দিতে পারে। অবসাদবশতঃ কিছু কাজ অসম্পূর্ণ থাকবে।

২২-২৩-২৪: কাজকর্মের চাপ বৃদ্ধির ফলে পরিশ্রম বাড়বে। পরিবারের কারোর বিবাহের জন্য চিন্তায় থাকবেন। বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম ব্যবসায় লাভ হবে।

২৫-২৬-২৭: সরকারী চাকরীতে সুনাম পাবেন ও দায়িত্ব বাড়বে। পাওনা অর্থ হাতে এলেও সঞ্চয় হবে না। দূর ভ্রমণে যাওয়ার সম্ভাবনা আছে।

২৮-২৯-৩০: ব্যবসাক্ষেত্রে পরিশ্রম বৃদ্ধি পাবে। উৎসাহ বৃদ্ধির ফলে অসমাপ্ত কিছু কাজ শেষ করতে পারবেন। আর্থিক চিন্তা থাকলেও অসুবিধে হবে না।
অক্টোবর – ২০১২ (৩১ দিন)

১-২-৩: সবদিক থেকে শুভফল পাবেন। গৃহাদি সংস্কার বা সম্পত্তি ক্রয়ের সুযোগ আসবে। মজুতদারী বা আমদানী-রপ্তানী ব্যবসায় লাভবান হবেন।

৪-৫-৬: দৈনন্দিন কাজকর্ম শুভ বলা যায়। নতুন কোন কাজের অর্ডার পেতে পারেন। খাদ্যদ্রব্য ব্যবসায়ে লাভের সুযোগ আছে। দাম্পত্য জীবন আনন্দময় থাকবে।

৭-৮-৯: শিক্ষার্থীদের কিছু বাধা-বিঘ্নের মধ্যে পড়তে হতে পারে। ব্যবসায় মূল্যবৃদ্ধির ফলে লাভের অংশ কম হবে। অংশীদারী ব্যবসায় মতবিরোধ দেখা দেবে।

১০-১১-১২: সরকারী চাকরীতে রাজনৈতিক আন্দোলনে জড়িয়ে পড়তে পারেন। বেসরকারী চাকরীতে বদলীর সম্ভাবনা আছে। মাতার স্বাস্থ্যের জন্য চিন্তা ও অর্থ ব্যয়।

১৩-১৪-১৫: প্রকাশক ও সাহিত্যিকদের প্রতিপত্তি ও যশ বৃদ্ধি পাবে। কোন দায়িত্বপূর্ণ কাজ পালন করে সুনাম পাবেন। সামাজিক কাজে পুরস্কার পেতে পারেন।

১৬-১৭-১৮: হঠাৎ কোন অর্থ বা সরকারী অনুদান লাভ করবেন। শিক্ষক বা অধ্যাপকদের সুনাম ও অর্থলাভ হবে। এখনই কোন কাজে অর্থ বিনিয়োগ করবেন না।

১৯-২০-২১: বাড়ীতে আত্মীয় সমাগমের ফলে অনেক কাজ অসম্পূর্ণ থেকে যাবে। কোন বন্ধুর সহযোগিতা পাবেন। কোন ব্যাপারে দাম্পত্য কলহ দেখা দেবে।

২২-২৩-২৪: ব্যবসায় কিছু লাভের ফলে কোন ঋণ শোধ করতে পারেন। চাকরীক্ষেত্রে কাজের চাপ বাড়লেও সহকর্মীদের সহযোগিতা পাবেন।

২৫-২৬-২৭: বুদ্ধির সাহায্যে অনেক কাজে সাফল্য লাভ হবে। কোন সন্তানের ব্যবহারে মানসিক কষ্ট পেতে পারেন। স্ত্রীর সঙ্গে মনোমালিন্য দূর হবে।

২৮-২৯: সরকারী চাকরীতে পদোন্নতির সঙ্গে বদলী হতে পারেন। কাজের দায়িত্ব বাড়ার ফলে চিন্তা হবে। পাওনা কিছু অর্থ হাতে পাওয়ায় চিন্তা হ্রাস পাবে।

৩০-৩১: অহেতুক কিছু অর্থ ব্যয় হতে পারে। কাজকর্মের চাপ থাকার ফলে সময়মত সব কাজ শেষ করে উঠতে পারবেন না। ধর্মীয় কাজে আগ্রহ বৃদ্ধি পাবে।
নভেম্বর – ২০১২ (৩০ দিন)

১-২-৩: ব্যবসায়ে লাভ হলেও কিছু সমস্যা দেখা দিতে পারে। কর্মচারীদের সঙ্গে কলহ-বিবাদ হতে পারে। কোন ব্যাপারে আপনার অহেতুক বদনাম হবে।

৪-৫-৬: কোন গুরুত্বপূর্ণ সংবাদে আনন্দ পাবেন। বিজ্ঞানের ছাত্র-ছাত্রীদের শুভ বলা যায়। বিশিষ্ট ব্যক্তির সঙ্গে পরিচয় হওয়ার ফলে ভালো কোন সুযোগ পাবেন।

৭-৮-৯: আর্থিক কারণে স্ত্রীর সঙ্গে মনোমালিন্য হতে পারে। হঠাৎ কোন সংবাদে বিচলিত হতে পারেন। পরিবারের কারোর শরীরে অস্ত্রোপচার হতে পারে।

১০-১১-১২: পাওনা অর্থ হাতে আসর ফলে চিন্তা কিছুটা কমবে। নতুন কাজ হাতে নেওয়ার ফলে কর্মচারী নিয়োগ করতে হতে পারে। চিকিৎসকদের সময়টা খুবই শুভ।

১৩-১৪-১৫: পুরোনো কোন সম্পত্তির বিষয়ে সমস্যা দেখা দিতে পারে। কোন মামলায় জড়িয়ে পড়তে পারেন। অহেতুক চিন্তা দূর করুন। স্বাস্থ্য ভালোই যাবে।

১৬-১৭-১৮: কাজকর্মের চাপ থাকবে ও পরিশ্রমও বেশী হবে। ব্যয়বাহুল্যের ফলে আর্থিক চিন্তা বৃদ্ধি পাবে। কোন স্ত্রীলোকের দ্বারা সংসারে অশান্তি হতে পারে।

১৯-২০-২১: গোপনে কেউ ক্ষতির চেষ্টা করেও সফল হবে না। কোন সন্তানের কৃতিত্বে গর্বিত হতে পারেন। পারিবারিক শান্তি শুভ।

২২-২৩-২৪: পাওনা অর্থ কিছু হাতে আসায় কাজকর্মে উৎসাহ বৃদ্ধি পাবে। কোন বিশিষ্ট লোকের সহায়তায় পুরোনো কোন সমস্যার সমাধান হবে। ভ্রমনে আনন্দ পাবেন।

২৫-২৬-২৭: শুক্র শুভ হলে আপনার কাজকর্মে সাফল্য লাভ হবে। নতুন কাজেরও সুযোগ পাবেন। স্ত্রীর সাহায্য ও সহানুভূতি লাভ করবেন।

২৮-২৯-৩০: হঠাৎ কোন আত্মীয় সমস্যায় ব্যস্ত হতে পারেন। নতুন কাজের সুযোগ এলেও মন বসবে না। ধৈর্য্য ধরে ও মাথা ঠান্ডা রেখে কাজ করবেন।
ডিসেম্বর – ২০১২ (৩১ দিন)

১-২-৩: চাকরীক্ষেত্রে কর্তৃপক্ষের সঙ্গে মতবিরোধ দেখা দিতে পারে। মনে অবসাদ ও ক্লান্তি দেখা দিতে পারে। পেটের অসুখে ভুগতে পারেন।

৪-৫-৬: কোন অসৎসঙ্গে জড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা। অহেতুক চিন্তায় কাজের ক্ষতি হতে পারে। বিশিষ্ট ব্যক্তির সহায়তা পাবেন। স্ত্রীর সহানুভূতি লাভ করবেন।

৭-৮-৯: দৈনন্দিন কাজে ব্যস্ততা বৃদ্ধি পাবে। প্রকাশক ও কাগজ ব্যবসায়ীদের ব্যবসায় শূভ। মনের কোন আশাপূরণ হতে পারেন। ভ্রমণের সময় অসুস্থ হতে পারেন।

১০-১১-১২: সরকারী কাজে হঠাৎ বদলীসহ দায়িত্ব বৃদ্ধি হতে পারে। অসমাপ্ত কোন কাজ শেষ করে মানসিক শান্তি পাবেন। সন্তাদের শিক্ষায় উন্নতি হবে।

১৩-১৪-১৫: কিছু পাওনা অর্থ আদায় করতে পারবেন। ব্যবসাক্ষেত্রে নতুন যোগযোগ হতে পারে। দৈনন্দিন কাজে ব্যস্ততা বৃদ্ধি পাবে।

১৬-১৭-১৮: আর্থিক চিন্তা থাকলেও খুব একটা অসুবিধে হবে না। রাজনীতিক্ষেত্রে ক্ষমতা বাড়বে। হঠাৎ কোন কারণে মন চঞ্চল হয়ে উঠতে পারে।

১৯-২০-২১: ঠান্ডা মাথায় কাজকর্ম করবেন। কোন প্রতিবেশী বিবাদে জড়িয়ে পড়তে পারেন। কোন পুত্রের জন্য উদ্বেগ দেখা দিতে পারে।

২২-২৩-২৪: শিক্ষার্থীদের সাফল্যে শিক্ষকরা গর্বিত হবেন। প্রযুক্তিবিদদের বিদেশ যাওয়ার সুযোগ আসবে। কোন নারীর প্রতি আকৃষ্ট হতে পারেন।

২৫-২৬-২৭: ব্যবসায় সাফল্য লাভ করবেন। গৃহে কোন মঙ্গলানুষ্ঠান হতে পারে। রাজনৈতিক শত্রুতা বৃদ্ধি পাবে। আগুন থেকে সাবধান থাকবেন।

২৮-২৯: কোন সন্তানের কৃতিত্বে গর্বিত হবেন। চাকরীক্ষেত্রে পরিবর্তনের যোগ আছে। কোন আত্মীয়ের সাহায্যে ব্যবসায় প্রসার ঘটতে পারে।

৩০-৩১: পুরোনো কোন সমস্যার সমাধান করতে পারবেন। আপনার কোন মনোবাঞ্ছা পূর্ণ হতে পারে। পশম ব্যবসায়ীরা লাভবান হবেন।
উল্লেখিত ফলাফল নারীদের জন্য সমানভাবে প্রযোজ্য হবে।

ব্যক্তিগত জন্ম সময় অনুসারে গ্রহ সংস্থান এবং তদানুসার দশা-অন্তর্দশা, অষ্টবর্গ, ষন্নাড়ীচক্র, ত্রিপাপচক্র, সপ্তশূন্য বিচার, ষোড়ষবর্গ বিচার প্রভৃত ফলকে স্থিরভাগ্যফল বলে। সুতরাং সুক্ষ্ণ স্থির অথবা সুক্ষ্ণ অস্থরি ভাগ্যফল জানত হলে ব্যক্তিগত কোষ্ঠী অথবা সাল, মাস, তারখি, সময় এবং জন্মস্থান একান্ত প্রয়োজন। যাদের সঠিক জন্ম তারখি জানা নাই তারা হস্তকররেখাসহ বহুবধি বিচাররে মাধ্যম জানতে পারবনে। ভাগ্য বলতে এখানে সুসময় এবং দুঃসময়কে বুঝানো হয়ছে। ড. হাসান কবির ভাগ্য গণনা করনে না। তিনি সুসময় ও দুঃসময় গণনা কর থাকেন। রমনী বা নারীশ্রেনীগণ বিবাহিত ও অবিবাহিত স্থলে বিবাহিতা অবিবাহিতা পড়ে নিবেন। এরুপ সর্বক্ষেত্রে লিঙ্গান্তর পরবির্তন করে পড়ে নিবেন। যেমন : স্ত্রীর স্থলে স্বামী ইত্যাদি ইত্যাদি।

তুলা রাশির প্রকৃতি (চন্দ্রস্তিত রাশি অর্থাৎকোষ্ঠী মতে) পত্রিকা মতে নয়

দৈহিক গঠনঃ
 মধ্যমকায়,কৃষ্ণবর্ণ,সুন্দর মুখশ্রী ও শোভন চক্ষুর্দ্বয়।

স্বরূপঃ চর ও বায়ুরাশি,সমধাতু, রজোগুনী, পুরুষকারক, অধিপতি শুক্র, কালপুরুষের অঙ্গ বস্তি শীর্ষোদয়।

তুলারাশির বৈশিষ্ট্যঃ শরাশিচক্রের সপ্তমরাশি তুলা। তার প্রতীক তৌলদন্ড (দাড়িপাল্লা)। তুলার অধিপতি শুক্র। আবার তুলার অষ্টমস্থ বৃষরাশির অধিপতিও শুক্র। পার্থিব ভোগ সুখের কারক এই শুক্র। কিন্তু মনে রাখতে হবে তৌলদন্ডে মেপে নেওয়ার কথা অর্থাৎ জীবনের মাপকাঠির যেন এদিক-ওদিক না হয়। তুলার দ্বাদশ রাশি কন্যা ও দ্বিতীয় রাশি বৃশ্চিক। বুধ বোধন শক্তির কারক ও মঙ্গল দৈহিক শক্তি ও সাহসের কারক। শুক্রকে দৈত্যগুরু বলা হয় কারণ সাংসারিক ব্যাপারে সর্ববিদ্যার কারক এই শুক্র। শুক্র প্রেম,ভালবাসা ও পার্থিব ব্যাপারে আসক্তির কারক। বুধ, শনি (চতুর্থপতি, পঞ্চমপতি - বিদ্যা ও বুদ্ধি), চন্দ্র (তুলার কর্মপতি) ও রবি সহায়ক হলে শুক্রের শক্তি লোকহিতার্থে,বৈজ্ঞানিক কার্যকলাপে উন্নতির বিশেষ সহায়ক হতে পারে। তুলারাশির জাতক-জাতিকার বিচার-বিশ্লেষণের ও লোকচরিত্র বোঝবার ক্ষমতাও রয়েছে। চিত্রা, স্বাতী ও বিশাখা এই তিনটি নক্ষত্রের সমবায়ে এই রাশি। চিত্রার মধ্যে রয়েছে শিল্পীর গুণ ও লোকরঞ্জক ক্ষমতা। চিত্রার জাতকের, বুধ অনুকূল থাকলে কল্পনা-কুশলতার বৈশিষ্ট্য গুণও রয়েছে। স্বাতীর মধ্যে রয়েছে চিন্তার গভীরতা ও অন্যকে আকর্ষণ করার ক্ষমতা ধীরস্থির ভাবে নিজের দৃষ্টিতে স্বাতীর জাতক অন্যের অন্তরকে বুঝতে পারেন। সৃষ্টিধর্মী কাজেও বিচিত্রতার আভাস। সৃষ্টিধর্মী কাজ ও বিচার বিবেচনার কাজে তুলার জাতকের বিশেষ আগ্রহ থাকে। বিচারক, আইনজীবি, শিল্পী ও চিন্তাবিদদের ক্ষমতা রয়েছে তুলার জাতকের মধ্যে। স্পষ্টবাদিতা ও ন্যায়নিষ্ঠা অনেক সময় তাদের সাধারণ স্বার্থসর্বস্বদের কাছে অপ্রিয় করে তুলতে পারে। প্রেম-ভালবাসার সঙ্গে ত্যাগ স্বীকার তাদের বিশেষ গুণ। অবশ্য শনি ও শুক্র জন্মকালে বিরূপ থাকলে তুলার জাতক বিপথগামী হতে পারে।

আনন্দের নেশা প্রবল। অশান্তি ও বিশৃঙ্খলা এড়াতে জাতক ন্যায়সঙ্গত মত স্থাপনে পশ্চাৎপদ হবে না। পরিশ্রমী ও কষ্টসহিষ্ণু। প্রেম ও ভালবাসার মূর্তপ্রতীক। তুলারাশির জাতক সব কাজ নিখুঁতভাবে করতে চাইবে। ভোগবিলাসে জাতকের সুরুচি প্রকাশ পাবে। সুখ ও দুঃখকে সমানভাবে গ্রহণ করে থাকে। সামাজিক ব্যবহার অত্যন্ত মধুর। নিজের সাধনার পথে অবিচল থেকে তার সুষ্ঠ রূপায়ণে সচেষ্ট হবে। আত্মবিশ্বাস জাতকের মধ্যে খুব বেশী থাকবে। তুলারাশির চরিত্রের দৃঢ়তা দেখাবার মত। সবার সঙ্গে মিশতে পটু। ভবিষ্যৎ ঘটনার ছায়া অনেক সময় জাতকের মনে অনেক আগে থেকেই রেখাপাত করে। জাতকের চরিত্র বাইরে থেকে সম্যক বোঝা যাবে না। দায়িত্ববোধ প্রবল। প্রীতির পাত্রের জন্য কোন ত্যাগ স্বীকারে কুন্ঠিত হয় না।

ভাগ্যঃ তুলারাশির জাতকের ভাগ্যের মধ্যবয়সের কাছাকাছি সময়েই বিশেষ উন্নতি হয়। প্রথম বয়সে ভাগ্য সাধারণতঃ অনিশ্চিত থাকবে। ৩৯ থেকে ৪৫ বর্ষ সময়টি জাতক বিশেষ আনন্দে কাটায়। জাতকের অজানা কিছু থাকে না। শিক্ষক, উপদেষ্টা এবং সরকারী/বেসরকারী বা পৌর-প্রতিষ্ঠানের কাজে আর্থিক দিকে লাভবান হন। জ্যোতিষ ও তন্ত্রশাস্ত্রের চর্চায় জাতক বিশেষ কৃতিত্ব দেখাতে সক্ষম হন। কর্মক্ষেত্রে জাতকের তেমন শত্রু থাকে না বললেই চলে। পরিণত বয়সে ব্যবসায়ে বা চাকুরীতে অবস্থানুযায়ী প্রতিষ্ঠা অবশ্যই হয়ে থাকে।

কর্মজীবনঃ কর্মজীবনে জাতক খুবই সংযত ও কর্তব্যপরায়ণ। কোনমতেই কোন কাজে গাফিলতি করে না। অধ্যবসায় ও নিষ্ঠা প্রবল বলে গবেষণামূলক কাজ, সংগঠনমূলক কাজ এবং পুস্তক,ঔষধপত্র ও যাত্রা থিয়েটারের সাজসরঞ্জাম,জুয়েলারী প্রভৃতি কাজে জাতক প্রতিষ্ঠা পাবে। কর্মজীবনে উন্নতিই হয় বেশীরভাগ ক্ষেত্রে।

প্রেম, বিবাহ ও দাম্পত্যজীবনঃ বিবাহিত জীবন সুখের হয়। তীব্র বাসনা ও কামনা জাতককে বিশেষভাবে উত্তেজিত করে তোলে। স্ত্রী সুন্দরী ও বিদুষী হয়। দাম্পত্যজীবনে জাতক স্ত্রীকে একান্তভাবে পেতে চায়। নিবিড় প্রীতির সম্পর্কও যেমন থাকবে তেমনি মনকষাকষিও কম হবে না। বিবাহোত্তর জীবন জাতকের বিশেষ আনন্দমুখর হয়। স্ত্রীর প্রভাবে উন্নতির সক্ষম হয়। স্ত্রীর স্বাস্থ্য নিয়ে জাতককে বিশেষ কষ্ট পেতে হয়। কোন দূরারোগ্য ব্যাধির প্রকোপ থেকে স্ত্রীকে রক্ষা করা কঠিন হয়ে পড়ে। সন্তান সংখ্যা মাঝামাঝি হয়। মধ্যবয়সে হঠাৎ কোন স্ত্রীলোকের প্রতি জাতকের আকর্ষণ দেখা দেয়।

বন্ধুভাগ্যঃ জাতকের লোক চেনার ক্ষমতা অপরিসীম। তীক্ষ্ণবুদ্ধি ও শাণিত দৃষ্টির প্রভাবে সহজেই প্রকৃত বন্ধুকে চিহ্নিত করতে সক্ষম হয়। বন্ধু খুব সীমিত হয়। বন্ধুরা স্বভাবতঃ প্রীতিপূর্ণ ও সহানুভূতিশীল হয়ে থাকে। বিদেশী কোন বন্ধুর দ্বারা জাতক বিশেষ উপকৃত হয়।

স্বাস্থ্যঃ অত্যন্ত আরামপ্রিয়তা বিলাসিতা ও দীর্ঘসূত্রতার জন্য জাতকের স্বাস্থ্য বিঘ্নিত হয়ে পড়ে। ডায়াবেটিস,হজমের গন্ডগোল,বাত, পক্ষাঘাত, চক্ষুরোগ এবং মানসিক রোগে জাতক বিশেষভাবে ভুগবে। শর্করাজাতীয় খাদ্য একেবারেই বর্জন করা ভাল। তুলারাশির জাতকের স্বাস্থ্য সাধারণতঃ অটুট এবং সৌম্যদর্শন হয়। যোগ ব্যায়াম ও যোগ নিদ্রার অভ্যাস জাতকের স্বাস্থ্যোন্নতির পক্ষে অপরিহার্য। তাছাড়া সাত্ত্বিক আহারও প্রয়োজন। ৩৮ থেকে ৪৯ বর্ষ মধ্যে মুত্রাশয়ের পীড়া,বাত ও চক্ষুরোগ এবং হজমের গোলমালে বিশেষ কষ্ট পাবে।

যোগ্যতাঃ গবেষণার কাজে,গণিত ও হিসাবশাস্ত্রে ও আধ্যাত্মিক সাধনায় জাতকের যোগ্যতা প্রকাশ পায়। ব্যবসায়েও জাতক আশানুরূপ যোগ্যতা দেখাতে সক্ষম হয়। জাতকের আত্মবিশ্বাস প্রবল বলে সহজেই যে কোন ব্যাপারে দক্ষতা দেখাতে ও লোককে চমৎকৃত করে দিতে পারে। ২৯ থেকে ৪৯ বর্ষ পর্যন্ত সময় বিশেষ উল্লেখযোগ্য। এই সময়েই জাতক প্রতিষ্ঠা অর্জনে সমর্থ হয় সাধারণত।

রত্নপাথরঃ জন্মছক বিচার সাপেক্ষে।

শুভবর্ণঃ বেগুনী, রূপালী, নীল ও গাঢ় লাল।

স্মরণীয় বর্ষঃ ৭,২১,২৭,২৯,৩৫,৩৯,৪২,৪৯,৫৪ এবং ৬৪ বর্ষ।

(উল্লেখিত ফলাফল নারীদের জন্য সমানভাবে প্রযোজ্য হবে।) 

ব্যক্তিগত জন্ম সময় অনুসারে গ্রহ সংস্থান এবং তদানুসার দশা-অন্তর্দশা, অষ্টবর্গ, ষন্নাড়ীচক্র, ত্রিপাপচক্র, সপ্তশূন্য বিচার, ষোড়ষবর্গ বিচার প্রভৃত ফলকে স্থির ভাগ্যফল বলে। সুতরাং সুক্ষ্ণ স্থির অথবা সুক্ষ্ণ অস্থরি ভাগ্যফল জানত হলে ব্যক্তিগত কোষ্ঠী অথবা সাল, মাস, তারখি, সময় এবং জন্মস্থান একান্ত প্রয়োজন। যাদের সঠিক জন্ম তারখি জানা নাই তারা হস্তকররেখাসহ বহুবধি বিচাররে মাধ্যম জানতে পারবনে। ভাগ্য বলতে এখানে সুসময় এবং দুঃসময়কে বুঝানো হয়ছে। ড. হাসান কবির ভাগ্য গণনা করনে না। তিনি সুসময় ও দুঃসময় গণনা কর থাকেন। রমনী বা নারীশ্রেনীগণ বিবাহিত ও অবিবাহিত স্থলে বিবাহিতা অবিবাহিতা পড়ে নিবেন। এরুপ সর্বক্ষেত্রে লিঙ্গান্তর পরবির্তন করে পড়ে নিবেন। যেমন : স্ত্রীর স্থলে স্বামী ইত্যাদি ইত্যাদি।
Note : প্রতিটি ব্যক্তিই Web Site এর মাসিক রাশি চক্রের প্রথম পৃষ্টায় বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ন তথ্য দেওয়া আছে ঠিক তদ্রুপ একেবারে শেষেও বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ন পরামর্শ দেওয়া আছে। আপনার PC তে বাংলা পড়া না গেলেও SolaimanLipi / Vrinda Font Install করে পড়তে হবে।

3 comments:

  1. ami amr rashi jante chai, amr DOB- 22 April Tuesday 1969. Banglar- 9 th Baishak, Tuesday 1376. Name- Nemai Paramanick ( Bapi ) call name birth time- 11.50 pm

    ReplyDelete
  2. Am amar namer rasi jantey chai sk mabud 1993/5/15 =8.00

    ReplyDelete
  3. Ami amar namer rashi jantechaI Md Rashidul seterday

    ReplyDelete